ভিক্ষাবৃত্তির অশুভ পরিণাম !!

অসহায় মানুষ অন্যের দ্বারে সাহায্য প্রার্থনা করে। সাহায্য ছাড়া জীবিকার কোনো ব্যবস্থা না থাকলে মানুষের কাছে ভিক্ষাবৃত্তির ছাড়া কোনো উপায় থাকে না। কিন্তু প্রয়োজন ছাড়া যারা অন্যের দ্বারে ভিক্ষা করে তাদের পরিণাম হবে খুব ভয়াবহ।

হাদিসে পাকে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ভিক্ষাবৃত্তির ব্যাপারে সুস্পষ্ট নসিহত পেশ করেছেন। কি পরিমাণ সম্পদ থাকলে অন্যের কাছে সাহায্য চাওয়া যাবে। সাহায্য পাওয়ার উপযুক্ত না হলেই বা সাহায্য প্রার্থণায় ক্ষতি কী তা-ও জানা যাবে হাদিসে পাকে।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন, প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘যদি কোনো ব্যক্তি মানুষের কাছে কিছু চায় অথচ তার কাছে কিছু পরিমাণ সম্পদ থাকে তাহলে কেয়ামতের দিন (সম্পদ থাকা অবস্থায়) মানুষের কাছে চাওয়ার কারণে তার মুখমণ্ডলে এক প্রকার জখম থাকবে।

তখন আরজ করা হলো, হে আল্লাহর রাসুল! কী পরিমাণ সম্পদ থাকলে অন্যের কাছে সাহায্য প্রার্থনা থেকে বিরত থাকতে হবে? প্রিয়নবি ইরশাদ করলেন, ‘পঞ্চাশ দেরহাম বা এই মূল্যের স্বর্ণ।’ (আবু দাউদ, তিরমিজি, ইবনে মাজাহ)

অন্য হাদিসে হজরত সাহল ইবনে হানজালা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘যে ব্যক্তি এমন অবস্থায় মানুষের কাছে ভিক্ষা করে অথচ ধনী হওয়ার মত সম্পদ তার কাছে থাকে; সে নিশ্চয় নিজের জন্যে অগ্নির মাত্রা বৃদ্ধি করতে চায়।

এক ব্যক্তি জিজ্ঞাসা করল, এ অবস্থার জন্য কী পরিমাণ সম্পদের মালিক হতে হবে? প্রিয়নবি ইরশাদ করেন, ‘যে পরিমাণ সম্পদ দ্বারা সকাল-সন্ধ্যার আহারের ব্যবস্থা হয়।

ভিক্ষা করার বৈধতা নিয়ে আল্লামা সানাউল্লাহ পানিপথী রহমাতুল্লাহি বলেছেন, ‘তবে ভিক্ষাকারীর জন্য তার সম্পদের পরিমাণের ব্যাপারে মতপার্থক্য থাকলেও এ কথা সত্য যে, যার আজকের খাবারের ব্যবস্থা আছে এমনকি পরের দিনের খাবার পাওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে ওই ব্যক্তির জন্য ভিক্ষা বা সাহায্য প্রার্থনা করা বৈধ নয়।

বিষয়টি যদি এমন হয় যে, আজকের খাবার আছে কিন্তু আগামী দিনের খাবার পাওয়ার ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা হয়নি, সে ক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির জন্য অন্যের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করা বৈধ।

পরিশেষে…
ইসলামের ভিক্ষাবৃত্তির কোনো সুযোগই নেই এবং তা অত্যন্ত অপছন্দনীয় কাজও বটে। জীবিকা নির্বাহে শ্রমের পাশাপাশি আল্লাহর সাহায্য পার্থনাই সবচেয়ে বড় বিষয়।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সম্পদ থাকা সত্ত্বেও অন্যের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করা থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। পরিশ্রমের মাধ্যমে সাবলম্বী হওয়ার তাওফিক দান করুন। ভিক্ষাবৃত্তির ভয়াবহ পরিণাম থেকে হেফাজত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন