রোজা যেভাবে ফেতনা ও পাপ থেকে মুক্তি দেয়

আল্লাহ তাআলা কুরআনে কারিমে বার বার মানুষকে পরীক্ষা করার কথা উল্লেখ করেছেন। যারা আল্লাহর পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে, তারাই সফলকাম। কিন্তু আল্লাহর পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার অন্তরায় হলো ফেতনা তথা পাপ-পংকিলতা। রোজা মানুষের ফেতনা তথা পাপ-পংকিলতা মোচনকারী।
জেনে নিন যে দেশে ২১ ঘণ্টা রোজা রাখতে হয়
আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তো কেবল পরীক্ষা বিশেষ। আর আল্লাহর কাছেই মহা প্রতিদান।’ (সুরা তাগাবুন : আয়াত ১৫)

অন্য আয়াতে আল্লাহ বলেন, ‘আর ভালো-মন্দ দ্বারা আমি তোমাদেরকে পরীক্ষা করে থাকি এবং আমার কাছেই তোমাদেরকে ফিরে আসতে হবে।’ (সুরা আম্বিয়া : আয়াত ৩৫)

আরও পড়ুন > তারাবিহ নামাজ পড়ার নিয়ম
শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে রোজা !!
সুরা বাকারায় আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘আর নিশ্চয় আমি তোমাদেরকে পরীক্ষা করব ভয় ও ক্ষুধা দ্বারা, ধন-সম্পদের ক্ষতি ও প্রাণহানি এবং ফল-ফসলের ক্ষতি দ্বারা। (সুরা বাকারা : আয়াত ১৫৫)
সর্বপ্রথম রোজা রাখার ইতিহাস !!
রোজায় ফেতনা থেকে উত্তীর্ণ হয়ে পাপ মোচন সম্পর্কে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতকে সুসংবাদ প্রদান করেছেন। যাতে তারা রোজা রাখার মাধ্যমে দুনিয়ার যাবতীয় গোনাহ থেকে মুক্ত হতে পারে।'রমজানে জান্নাতের দরজাসমূহ খুলে দেয়া হয় এবং জাহান্নামের দরজাসমূহ বন্ধ করে দেয়া হয়'
হজরত হুজাইফা রাদিয়াল্লাহু বলেন, ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেছেন, ফেতনা সম্পর্কে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর হাদিস কার মনে আছে? হুজাইফা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, আমি তাকে বলতে শুনেছি-
‘ব্যক্তির ফেতনা হলো তার পরিবার-পরিজনে, ধন-সম্পদে এবং তার প্রতিবেশির মধ্যে। এ সবের কাফফারা হলো- নামাজ, রোজা এবং সাদকা।’ (বুখারি ও মুসলিম)

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন