১০ আগস্ট : বাণী চিরন্তনী

বাণী চিরন্তনী- দুনিয়াতে যুগেযুগে যে সকল ওলি আল্লাহর আবির্ভাব ঘটেছে তন্মধ্যে আব্দুল কাদের জিলানী (রহ.) অন্যতম। তাঁকে গাউসুল আজম হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

আজ তার মুখ নিসৃত কিছু বাণী দেয়া গেল:

* নিজের কল্যাণের স্বার্থে এবং আযাব থেকে রেহাই পেতে যথাসম্ভব কম কথা বল। তুমি তোমার আমলনামার পাতাগুলো আড্ডাবাজি দিয়ে পূর্ণ করো না। কেননা, চূড়ান্ত হিসাব-নিকাশের দিনে যে বিষয়টি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে তা হল তোমার জীবনে আল্লাহকে স্মরণ করার মুহূর্তগুলো।

* আপনার বলা কথাগুলোই প্রকাশ দিবে আপনার অন্তরের গভীরে কী আছে।

* যখন কোন বান্দা আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে, সেটা আসলে কেবল মুখে উচ্চারিত কোন বিষয় থাকে না, বরং আল্লাহর করুণা ও রহমত প্রাপ্তির কৃতজ্ঞতা স্বীকার অন্তর থেকেও করা হয়।

* হারাম খাদ্য অন্তরকে মেরে ফেলে পক্ষান্তরে হালাল খাদ্য অন্তরকে জীবিত করে।

* বান্দার নিকট আল্লাহ তায়ালার পরিচয় অর্জিত হয় শরীয়তের ওপর পুরোপুরি আমল করার পরেই, তার আগে নয়।

* বৈধ খাদ্য তোমাকে আখিরাতের কাজে নিয়োজিত করবে এবং ইবাদতে উৎসাহ যোগাবে।

* একজন মানুষ যদি ষাট বছর বাঁচে, হিসেব করলে দেখা যাবে তার জীবনের তিন ভাগের এক ভাগ কুড়ি বছর শুধু সে ঘুমিয়ে কাটিয়েছে। অথচ কুড়ি বছরে অনেক ভালো কাজ করা তার পক্ষে সম্ভব হতো। তাই যতদূর সম্ভব ঘুম কম করে চলা উচিত।

* যারা প্রয়োজনের চেয়ে বেশী খাবার খায় তারা যেন নিজের দাঁত দিয়ে নিজের কবর তৈরী করে।

* যে বেশী খায়, গান করে এবং ঘুমায়, সে সমস্ত ভালো কাজ থেকে দূরে সরে যায়। মানুষের মনে রাখা উচিত যে, সে বাঁচার জন্য খায়, খাওয়ার জন্য বাঁচে না।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন