নিমেষেই ব্যথা দূর করতে পান করুন চমৎকার এই ২ টি পানীয়

শারীরিক ব্যথা, মানসিক চাপ, অশান্ত মন ইত্যাদি বেশ যন্ত্রণাদায়কই হয়ে ওঠে অনেক সময়। কিন্তু অনেকেই এর মাঝেই নিজেকে স্থির রাখার চেষ্টা করে কাজ চালিয়ে যান। এর ফলাফল কিন্তু ভালো হয় না, কারণ চেপে রাখা প্রদাহ এবং চাপ অনেকাংশেই শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে থাকে। এই ধরণের যন্ত্রণাদায়ক মুহূর্তে ১ কাপ চমৎকার পানীয় যদি পাওয়া যায় যার জাদুকরী ক্ষমতা শারীরিক এবং মানসিক ব্যথা দুটোই নিমেষে দূর করে দিতে পারে তাহলে তো কথাই নেই। সত্যিই কিন্তু এমন পানীয় রয়েছে যা নিমেষেই দূর করে দিতে পারে শারীরিক ব্যথা এবং মানসিক চাপের মতো যন্ত্রণাকে। চলুন চিনে নেয়া যাক এই চমৎকার পানীয় দুটি।

এই পানীয়গুলো হচ্ছে বিশেষ ধরণের চা। এই চাগুলো পানের ফলে শারীরিক ব্যথা এবং মানসিক চাপ জনিত সমস্যা দূর করা সম্ভব। চায়ের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে এবং চায়ের ট্যানিন পরিমিত পরিমাণে গ্রহণ করা হলে তা পেটের প্রদাহ জনিত সমস্যা, ঠাণ্ডা-সর্দি, ফ্লু ধরণের সমস্যা দূরে রাখে। হলুদের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদানও দেহের প্রদাহ জনিত ব্যথা দূর করতে বিশেষভাবে কার্যকরী।গবেষণায় দেখা যায় হলুদের রয়েছে অ্যাসপিরিন বা এই ধরণের কেমিকেল জাতীয় ঔষধের মতো ব্যথা দূর করার কার্যকরী ক্ষমতা। চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক এই পানীয়গুলো তৈরির প্রণালী।
ব্ল্যাক আমন্ড মিল্ক টি

যা যা লাগবে
– ২ চা চামচ মধু
– ২ চা চামচ ব্ল্যাক টি
– ১/৪ চা চামচ দারুচিনি
– আধা কাপ গরম আমন্ড মিল্ক অর্থাৎ কাঠবাদামের দুধ (অন্য যেকোনো দুধ ব্যবহার করতে পারেন)
– ২ টি এলাচ অল্প ছেঁচে নেয়া
– ১ ইঞ্চি আদা কুচি
– ২ কাপ পানি

পদ্ধতি ও সেবনবিধি

– পানিতে এলাচ, দারুচিনি ও আদা দিয়ে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন।
– এরপর এতে চা পাতা দিয়ে ২ মিনিট অল্প আঁচে জ্বাল দিতে থাকুন আরও ২ মিনিট।
– চুলা থেকে নামিয়ে গরম দুধ দিয়ে নেড়ে ছেঁকে নিন ভালো করে এবং মধু মিশিয়ে পান করুন।
সুইট টারমারিক ব্ল্যাক পেপার টি

যা যা লাগবে

– ১/৩ কাপ মধু

– আড়াই চা চামচ হলুদগুঁড়ো

– লেবুর রস

– গোল মরিচ গুঁড়ো

প্রণালী ও সেবনবিধি

– হলুদ গুঁড়ো বা বাটার সাথে মধু মিশিয়ে নিন ভালো করে। (এই কাজটি করে বয়ামে ভরে রেখে দিতে পারেন যখন তখন ব্যবহারের জন্য)।
– পানি ফুটিয়ে নিন ভালো করে। এরপর মধু গোলমরিচের মিশ্রন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন।
– চুলা থেকে নামিয়ে লেবুর রস ও তাজা গুঁড়ো করা গোলমরিচ মেশান।
– ব্যস, এই পানীয় পান করে নিন সাধারণ চায়ের পরিবর্তে।
সতর্কতা

– যারা নিয়মিত ডাক্তারের পরামর্শে ঔষধ সেবন করেন তারা এই পানীয় পানের পূর্বে নিজের ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিন।
– গর্ভবতী নারী এবং অন্যান্য অসুস্থতায় এই পানীয় পান করবেন না।
– দিনে ১ কাপের বেশি পান করবেন না।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন