২০ মিনিটেই দই তৈরি করার পদ্ধতি

স্বাগতম আজকের সম্পূর্ণা ২৪ এর টিপস সেকশনে। এই সেকশনে দৈনন্দিন কাজ সহজ করে দেয় এমন অনেক টিপস সেয়ার করা হয়ে থাকে। আজও তেমন একটি টিপস নিয়ে হাজির হয়েছি। আসা করি ভালো লাগবে আপনাদের ।

একটু ভালো ও ভারী খাওয়ার পর দই খেলে মন্দ হয় না। কিন্তু আপনারা অনেকেই জানেন বাজারের দই অনেক সময় ভালো হয় না। বিভিন্ন রকম ভ্যাজাল মিশ্রিত থাকে আবার অনেক গুলো তৈরি হয় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে। তাই ঘরে যদি দই পাতানো যেত?

কিন্তু ঝালেমার ভয়ে অনেকেই দই পাতাতে ভয় পেয়ে থাকেন। কিন্তু আসলে কি জানেন দই পাতানো আসলে ঝামেলার কিছু না। আপনি চেস্টা করলেই পারবেন। তাহলে আসুন আজ জেনে নেওয়া যাক মিষ্টি দই তৈরি করার সহজ রেসিপি।

প্রথমে এক লিটার তরল দুধ জ্বাল দিয়ে ৭০০-৮০০ গ্রামে নিয়ে আসতে হবে। তাই একটি পাত্রে দুধ গরম দিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন। জ্বালানোর সময় বার বার নেড়ে চেড়ে দিতে হবে। যাতে করে দুধের নিচে পোড়া না লাগে। খেয়াল রাখবেন ওপরে যেন স্বর না পড়ে। এবার একটি বাটিতে সামান্য দুধ নিয়ে ১/৪ কাপ গুড়া দুধ গুলিয়ে গরম দুধে মিলিয়ে নিন। এতে দুধটা আরও ঘন হতে সাহায্য করবে। এবার অন্য একটি পাত্রে চিনি দিয়ে ক্যারামেল তৈরি করে নিন। ক্যারামেল তৈরি হয়ে গেলে তাতে সামান্য গরম দুধ দিয়ে ভালোভাবে নেড়ে মিশিয়ে নিন। মেশানো হয়ে গেলে গরম দুধের পাত্রের মধ্যে এই পুরো ক্যারামেল এর মিশ্রণ ঢেলে দিন। এভাবে আরও ১-২ মিনিট জ্বাল দিয়ে দিন দুধে। তার পর চুলা বন্ধ করে দুধটাকে নেড়ে চেড়ে তাপমাত্রা নরমাল করে নিন।

এবার দই এর বিজ দেওয়ার পালা। বাজারের নানা রকম দই পাওয়া যায়। আমি আড়ং এর দই ব্যবহার করেছি। ১/২ কাপ দই একটি বাটিতে নিয়ে ভালোভাবে বিট করে নিন। এবার এই বিজ দই এর মধ্যে নরমাল করা দুধটা দিয়ে দিন। একটি বিটার দিয়ে ভালোভাবে বিট করতে করতে দুধটা ঢালুন।

এবার একটি পাত্রে পুরো দুধটা ঢেলে বাটি সুদ্ধ একটি প্রেসার কুকারে দিয়ে দিন। চুলার জ্বাল একেবারে লো করে ২০ মিনিট রেখে দিন। ২০ মিনিট পর চুলা বন্ধ করে দিন। ঠান্ডা হওয়ার পর ফ্রিজে দিয়ে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন মজাদার দই।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন