আল্লাহ যেসব দান ও মান্নত সম্পর্কে অবগত

মানুষ আল্লাহর পথে দান করুক কিংবা শয়তানে পথে ব্যয় করুক; আল্লাহর জন্য মান্নত করুক কিংবা গাইরুল্লাহর জন্য মান্নত করুক, উভয় অবস্থায়ই মানুষের নিয়ত ও কাজ সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা ভালোভাবেই জানেন।

যারা আল্লাহর জন্য দান করে এবং মান্নত করে; তারা তাদের কাজের প্রতিদান পাবে। আর যারা আল্লাহ ব্যতিত অন্যের জন্য ব্যয় করে এবং মান্নত করে তাদেরকে আল্লাহর শাস্তি থেকে রক্ষা করার কেউ নেই।

আল্লাহ তাআলা কুরআনে পাকে মানুষের সব দান বা মান্নতের বিষয় সম্পর্কে অবগত। এ সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা বলেন-

আয়াতের অনুবাদ

আয়াত পরিচি.তি ও নাজিলের কারণ
সুরা বাকারার ২৭০ নং আয়াতে আল্লাহ তাআলা মানুষের দান বা মান্নত সম্পর্কে সুস্পষ্ট তথ্য দিয়ে বলেন মানুষ যে বিষয়ে দান বা ব্যয় করুক কিংবা মান্নত করুক, আমি সব কিছু অবগত। আর যারা অন্যায়কারী তাদের কোনো সাহায্যকারী থাকবে না।

আয়াতে উল্লেখিত দান বা ব্যয় বলতে সব ধরনের ব্যয়কেই বুঝানো হয়েছে। উদাহরণ স্বরূপ উল্লেখ করা যেতে পারে- আল্লাহর পথে ব্যয় করা হয়নি বরং গোনাহের কাজে ব্যয় করা হয়েছে; লোক দেখানো ব্যয় বা দান করা হয়েছে; অনুগ্রহ প্রকাশে ব্যয় করা হয়েছে; হালাল এবং উৎকৃষ্ট বস্তু ব্যয় না করে নিম্ন মানের বস্তু ব্যয় করা হয়েছে; এ সবই আয়াতে ব্যয় বলতে বুঝানো হয়েছে।

আবার মান্নত শব্দের মাধ্যমে সব ধরনের মান্নতের কথাই এখানে ওঠে এসেছে। তা আল্লাহর জন্য হোক কিংবা গাইরুল্লাহর জন্য হোক। আর্থিক ইবাদতের মান্নত হোক কিংবা দৈহিক ইবাদতের মান্নত হোক। আবার এ সব মান্নত শর্তযুক্ত হোক কিংবা শর্তহীন হোক; সবই এ মান্নতের অন্তর্ভূক্ত।

আয়াতে উল্লেখিত ব্যয় বা দান এবং মান্নত সব সম্পর্কে মহান আল্লাহ অবগত আছেন বলে মানুষকে সতর্ক করেছেন। যাতে মানুষ সঠিক পথে ব্যয় করে এবং সঠিকভাবে মান্নত করে।

আয়াতের শেষে আল্লাহ তাআলা বান্দাকে হুশিয়ার করে দিয়ে বলেছেনর। এ সব ক্ষেত্রে আল্লাহ সঙ্গে জুলুমকারী কোনো ব্যক্তির জন্য কোনো সাহায্যকারী নেই।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সঠিক পথে দান করার এবং সঠিকভাবে মান্নত করার তাওফিক দান করুন। দান ও মান্নতসহ সব কাজে আল্লাহর নির্দেশ অমান্য থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। কুরআনের বিধান যথাযথ পালন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন