ফুলকপির পরোটা

আলু পরোটা তো অনেকেই খেয়েছেন, ফুলকপির পরোটা খেয়েছেন কি? ফুলকপির পরোটা তৈরির বিষয়টা একটু অন্য রকম, আলুর মত ভর্তা বানিয়ে পরোটায় দেয়া যায় না। বরং ভিন্ন একটি রেসিপিতে তৈরি করতে হয় পুর আর সেই পুর পরোটার মাঝে ভরতেও হয় একটু কৌশল করে। লবণের মাঝেও আছে টেকনিক! চলুন জেনে নিই রেসিপিটি।

উপকরণ

রুটির জন্য

✿ ময়দা – ১ কাপ

✿ তেল – ১ টেবিল চামচ

✿ লবণ ও পানি পরিমান মতো

পুরের জন্য

✿ গ্রেট করা বা কুচানো ফুলকপি ২ কাপ

✿ জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ

✿ মরিচের গুঁড়া আধা চা চামচ

✿ ধনিয়া গুঁড়া আধা চা চামচ

✿ পেঁয়াজ মিহি করে কুচানো ১ টি

✿ কাঁচা মরিচ ২ টি

✿ লবণ – স্বাদ মতো

✿ ঘি বা মাখন ভাজার

প্রস্তুত প্রণালী

► ময়দায় লবন, তেল ও পানি মিশিয়ে রুটি তৈরির খামিরের এর মতো খামির তৈরি করে আলাদা করে রাখুন।

► গ্রেট করা ফুলকপির সাথে সামান্য লবন দিয়ে মাখিয়ে কিছু সময় রেখে দিন,এতে করে ফুলকপির ভেতরের সব পানি বের হয়ে যাবে।

► আধা ঘণ্টা পর ফুলকপির পানি ঝরিয়ে নিন। এবার পানি ঝরানো ফুলকপির সাথে পেঁয়াজ কুচি,কাঁচা মরিচ কুচি,জিরা গুঁড়া,ধনিয়া গুঁড়া,মরিচের গুঁড়া ও লবণ ভালো করে মিশিয়ে অল্প তেলে ভেজে নিন। ফুলকপি সিদ্ধ হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। চাইলে ধনে পাতা কুচিও দিয়ে পারেন। ভাজা ভাজা পুর হবে।

► এবার আগে থেকে তৈরি করে রাখা খামির থেকে পরিমান মতো খামির নিয়ে একটু মোটা করে ছোট একটা রুটি বানিয়ে নিন। এই রুটির ভেতর ফুলকপির পুর ভরে মুখটা ভালো করে মুড়ে দিন। ঠিক যেভাবে আলু ও ডালের পুরী তৈরি করা হয়।

► এবার সাবধানে সামান্য ময়দা দিয়ে পরোটা বেলে নিন ।

► পরোটা বেলা হয়ে গেলে ঘি বা মাখন দিয়ে ভালমতো লাল করে সেঁকে নিন । আচার বা সসের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন ।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন