পান্তাভাতের যত গুণ!

পহেলা বৈশাখ তথা বাংলা নববর্ষের প্রথম দিনে যে বিষয়টি তুলে ধরা যেতে পারে তা হলো পান্তা ভাতের গুরুত্ব! বাঙ্গালীর বর্ষ বরণ শুরু হয় এই পান্তা খেয়েই। না হলে যেন বাঙ্গালীই নয়। শুধু বাঙ্গালী হওয়ার জন্যই পান্তা খেতে হবে তা নয়, পান্তা ভাতের যে পরিমাণ পুষ্টিগুণ রয়েছে তা জানলে প্রতিদিনই খাবেন।

পান্তা ভাত যেন আমাদের সেই পুরনো দিনের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়, যখন ফ্রিজে রেখে খাবার ঠাণ্ডা করার সুযোগ ছিল না।

সাধারণত, কৃষক পরিবারে রাতের বেঁচে যাওয়া ভাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে ঠাণ্ডা রাখার একটি প্রচলণ অনেক আগে থেকেই রয়েছে। সেই ভাত সকালে খাওয়া হয় নাস্তা হিসেবে। সঙ্গে থাকে কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ, ভর্তা বা গত রাতে থেকে যাওয়া তরকারি। আর পান্তা ভাতের সঙ্গে মাটির সানকি যেন মানিক জোড়।

পুষ্টিবিদদের মতে, এই পান্তা ভাত শরীরের জন্যে বেশ উপকারী। পানি বাড়িয়ে দেয় ভাতের পুষ্টিগুণ। রাতের অবশিষ্ট ভাত সকালে কৃষকের নাস্তার পিঁড়িতে হাজির হয় আর্শীবাদ হয়ে। দিনের প্রচণ্ড রোদ্রের মোকাবেলা জন্যে প্রস্তুত করে তোলে তাঁকে।

বাংলাদেশ এগ্রিকালচার রিসার্চ কাউন্সিল-এর পুষ্টি বিভাগের এক গবেষণাপত্রে দেখা যায়, সদ্য রান্না করা ভাতের চেয়ে পান্তা ভাত বেশি পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ। এতে আরও বলা হয়, পান্তা ভাত সহজে হজম হয়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং এর ফলে বিভিন্ন রকমের স্বাস্থ্যগত সুবিধা পাওয়া যায়।

কাউন্সিলের পুষ্টি বিভাগের পরিচালক ড. মনিরুল ইসলাম বলেন, “বাংলাদেশের লোকজন সাধারণত ক্যালসিয়াম এবং আয়রনের ঘাটতির মধ্যে থাকেন। পান্তা ভাত সেই সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।”

পান্তা ভাতের আরও গুণের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। “বিশেষ করে, বয়ঃসন্ধিকালে মেয়েদের যে আয়রনের অভাবে হয়, নিয়মিত পান্তা ভাত খাওয়া সেই অভাব পূরণে সহায়তা করতে পারে।”

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভার্সিটির একজন চিকিৎসক কাউসার আলম বলেন, পান্তা ভাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি এবং সি রয়েছে।

তবে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে ‘ঝিমুনিভাব’-এর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “পান্তা ভাতের পানিতে যে ব্যাক্টেরিয়া জন্ম নেয় তা পেটে কোন সমস্যা তৈরি করে কিনা সে বিষয়েও সতর্ক থাকতে হবে।”

এশিয়ান জার্নাল অব ক্যামেস্ট্রি-তে প্রকাশিত অপর এক গবেষণায় দেখা যায়, পান্তা ভাতে রয়েছে আয়রন, ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং জিঙ্কসহ বিভিন্ন প্রকার খনিজপদার্থ।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন