রঙ চা নাকি কালো কফি

দুধ-চিনি দেওয়া চা আর কফি, দুটোই শরীরের পক্ষে নানা অসুবিধার সৃষ্টি করতে পারে। তাই অধিকাংশ মানুষই দৈনন্দিন জীবনে হয় কালো রঙ চা খান, নাহয়ে কালো কফি বা ব্ল্যাক কফি খান। এর ভেতরেও প্রশ্ন থেকে যায়। এই দু’টির মধ্যে কোনটি একটু হলেও এগিয়ে ?

রঙ চা

প্রথমে কালো চা নিয়ে সওয়ালটা শুরু করা যাক। চায়ের মধ্যে কিছু অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকে, তবে গ্রিন বা হোয়াইট টি যেহেতু সবচেয়ে কম প্রসেসিংয়ের মধ্যে দিয়ে যায়, তাই তার মধ্যে কালো চায়ের চেয়ে বেশি পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের উপস্থিতি মেলে। আমাদের মুখে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া থাকে, তার কারণে দাঁতে প্লাক জমে। চায়ের পলিফেনল হচ্ছে এই ব্যাকটেরিয়ার যম। সেই সঙ্গে তা হাড়ের শক্তি বাড়ায়। তা ছাড়াও রঙ চায়ে থাকে অ্যালকাইলামাইন আর ট্যানিন। তা অন্ত্রের শক্তি বাড়ায়, বাড়ায় রোগপ্রতিরোধক্ষমতা। চায়ে ক্যাফেইনের পরিমাণও কফির অর্ধেক।

কালো কফি

যাঁরা সকালে উঠেই জিমে ছোটেন, তাঁদের কাছে ব্ল্যাক কফি হচ্ছে একেবারে আদর্শ পানীয়। বলা হয়, যাঁদের সকাল কালো কফি দিয়ে শুরু হয়, তাঁরা অনেকদিন বাঁচেন সুস্থভাবে। এর মধ্যেও কিছু অ্যান্টিঅক্সিডান্ট থাকে, থাকে পটাশিয়াম আর ম্যাগনেশিয়ামও। নিয়মিত ব্ল্যাক কফি খেলে পার্কিনসন’স, বেসাল সেল কারসিনোমা, অ্যালজ়াইমার্স ও ডায়াবেটিসের মতো রোগ ঠেকানো যায় বলেও দাবি করা হয়।

তা হলে আপনার জন্য কোনটি আদর্শ?

যদি আপনি সকালবেলা উঠেই জিম বা জগিং করতে যান, তা হলে কালো কফি খেতে পারেন। আর যাঁরা ধীরে-সুস্থে সকালটা শুরু করতে চান, তাঁদের জন্য চায়ের কোনও বিকল্প নেই। তবে অনেকেই মনে করেন যে চা বা কফির আগে যদি খালি পেটে খানিকটা পানি ও কোনো একটি ফল বা কিছু বাদাম খাওয়া যায়, তা হলে শরীর বেশি চনমনে থাকে। কোনটি আপনার ক্ষেত্রে বেশি কার্যকর তা নিজেই পরখ করে দেখুন!